গিট : বিদ্যমান রিমোট রিপোজিটরি নিয়ে কাজ করা

অনলাইনে গিট রিপোজিটরি সংরক্ষণ করে রাখার জন্য কিছু সার্ভার রয়েছে। যাদের মধ্যে github, bitbucket অন্যতম। এই সব সার্ভারে সংরক্ষিত রিপোজিটরিগুলোকে রিমোট রিপোজিটরি বলা হয়। আপনি সাইটগুলোতে প্রবেশ করে আপনার নিজস্ব রিপোজিটরি তৈরি করতে পারবেন। একটি রিমোট রিপোজিটরি তৈরি করার পর আপনাকে সাধারণত আপনার লোকাল কম্পিউটার থেকেই সেগুলোকে সম্পাদনা করতে হবে। সম্পাদনা শেষে আবার রিমোট রিপোজিটরিতে আপলোড করে দিতে হবে। চলুন দেখা যাক, গিট ব্যবহার করে কিভাবে আমরা একটি রিমোট রিপোজিটরিকে সম্পাদনা করতে পারি।

(আমরা এখানে bitbucket ও ওয়েব ডেভেলপমেন্ট এর রিপোজিটরি নিয়ে আলোচনা করবো)
১. প্রথমেই আপনার রিমোট রিপোজিটরিটিকে আপনার নিজস্ব কম্পিউটারে নিয়ে আসতে হবে। এজন্য আপনাকে cd কমান্ড ব্যবহার করে আপনার কম্পিউটারের localhost এ যেতে হবে। localhost এর জন্য আপনাকে htdocs অথবা www ফোল্ডারে প্রবেশ করতে হবে।

২. ব্রাউজারের মাধ্যমে আপনার রিমোট রিপোজিটরিতে প্রবেশ করুন। সেখানে clone বাটনে ক্লিক করার পর সেখানে একটি কমান্ড দেখতে পাবেন। clone কমান্ডের দুইটি অপশন থাকে। একটি হচ্ছে https এবং অন্যটি ssh। ssh কমান্ড নির্বাচন করলে আপনার কম্পিউটারে একটি ssh key তৈরি করতে হবে। পরে সেটি আপনার সার্ভারে সংরক্ষন করতে হবে। কিন্তু https নির্বাচন করলে কোন key তৈরি করতে হবে না। চলুন দেখে নেয়া যাক, কিভাবে ssh key তৈরি করতে হয়-
=> terminal এ ssh-keygen কমান্ডটি লিখুন। এতে করে আপনার কম্পিউটারের home ফোল্ডারে লুকানো একটি .ssh ফোল্ডার তৈরি হবে এবং একটি id_rsa.pub ফাইল তৈরি হবে। id_rsa.pub ফাইলটি খুলুন এবং এর ভিতরের লেখাগুলো copy করুন।
=> আপনার সার্ভার account এ প্রবেশ করুন। সেখান থেকে manage account লিংকে(link) প্রবেশ করুন। এরপর সেখান থেকে ssh key লিংকে প্রবেশ করে আপনার key টি paste করুন। এরপর সংরক্ষন করে বের হয়ে আসুন।

৩. সার্ভার একাউন্ট(account) থেকে clone কমান্ডটি copy করে terminal এ paste করুন।

৪. আপনার clone কমান্ডটি যদি https এর হয় তাহলে আপনার কাছে আপনার একাউন্ট এর user name এবং password চাইবে। সঠিক তথ্য দিলে আপনার সার্ভারের রিপোজিটরিটি আপনার নিজস্ব কম্পিউটারে ক্লোন(clone) হয়ে যাবে। আপনার localhost এ প্রবেশ করলে সার্ভারের রিপোজিটরির নামে একটি ফোল্ডার দেখবেন। এটাই আপনার নিজস্ব কম্পিউটারে রিমোট রিপোজিটরির ক্লোন।

৫. এখন অফলাইনে থেকেই আপনার রিপোজিটরিতে কাজ করুন। এরপর আপনি যখনি আপনার রিমোট রিপোজিটরিতে আপনার কোড(code) সংযুক্ত করতে চাইবেন তখন আপনাকে কিছু কমান্ড ব্যবহার করতে হবে। সেগুলো নিচে দেয়া হলো।
=> আপনার রিপোজিটরি প্রত্যেকবার স্থিতিশীল(stable) অবস্থায় পৌছলে সেগুলো Staging Area তে পাঠাতে হবে। Staging area তে পাঠানোর মানে হচ্ছে আপনি যে যে ফাইলগুলোকে নিশ্চিতভাবে রিপোজিটরিতে অন্তর্ভুক্ত করবেন তার তালিকা তৈরি করা। সে জন্য আপনাকে git add কমান্ড ব্যবহার করতে হবে। যদি আপনি বর্তমান সবগুলো ফাইলকে Staging area তে সংযুক্ত করতে চান তবে আপনাকে git add * কমান্ড ব্যবহার করতে হবে। যদি একটি ফাইকে সংযুক্ত করতে চান তবে git add কমান্ডের পর ফাইলের নাম লিখতে হবে। ধরুন আপনি test.txt নামে একটি ফাইল তৈরি করেছেন যা আপনি Staging area তে পাঠাতে চান। তখন আপনার কমান্ড হবে git add test.txt।
=> আপনার staging area তে সংযুক্ত করা ফাইলগুলোকে মূল রিপোজিটরির সাথে নিশ্চতভাবে সংযুক্ত করা। সে জন্য আপনাকে git commit কমান্ডটি ব্যবহার করতে হবে। আপনাকে প্রত্যেক commit এর সাথে একটি বার্তা সংযুক্ত করে দিতে হবে। তখন আপনার সম্পূর্ণ কমান্ডটি হবে-

git commit -a -m “Your Message”

=> এখন কমিট(commit) করা ফাইলগুলোকে রিমোট রিপোজিটরিতে সংযুক্ত করতে আপনাকে git push কমান্ডটি ব্যবহার করতে হবে। আপনি কোন ব্রাঞ্চ(branch (branch সম্পর্কে অন্য টিউটরিয়ালে আলোচনা করা হবে))-এ ফাইল সংযুক্ত তাও বলে দিতে হবে। আমরা আমাদের ফাইল master branch এ সংযুক্ত করবো। সম্পূর্ণ কমান্ডটি নিচে দেয়া হলো।

git push origin master

এখানে origin হচ্ছে রিমোট রিপোজিটরির নাম। যে রিমোট রিপোজিটরি থেকে ফাইল ক্লোন করা হয় তার নাম সাধারণত origin দেয়া থাকে।

Advertisements

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s